১৫ বছরের ছেলের হাত ধরে পালালো তিন সন্তানের জননী

0
22

অসম প্রেমের নজির এই নতুন নয়। এর আগেও অনেক অসম প্রেমের চিত্র দেখা গেছে। তবে সবচেয়ে বড় কথা ভালোবাসা নাকি হিসাব কষে হয় না। এই কথা যেন এখানেই সত্যি হলো।ঘটনাটি ভারতের উত্তরপ্রদেশের চম্পেরগঞ্জে। অসম বয়সের ভালোবাসার গল্প সিনেমা বা উপন্যাসের গল্পকেও হার মানাবে। কেননা বাস্তবে এমন ভালোবাসা খুব বেশি দেখা যায় না।

প্রেমের খাতিরে ১৫ বছরের এক কিশোরের সঙ্গে পালিয়ে গেল ২৯ বছরের এক নারী। ওই কিশোর ৮ম শ্রেণির ছাত্র জানা গেছে। ওই নারীর তিনটি সন্তান রয়েছে। স্বামী এবং সন্তানদের রেখেই তার চেয়ে ১৪ বছরের ছোট ওই কিশোরের সঙ্গে পালিয়ে যায় ওই নারী।

ওই নারীর স্বামী জানিয়েছে, বেশ কিছুদিন ধরেই তার মনে সন্দেহের দানা বেধেছিল। ওই সময়ই কিশোরটির সঙ্গে তার স্ত্রীর প্রেম জমে উঠেছিল। পুলিশ জানিয়েছে, গত বৃহস্পতিবার স্থানীয় এক শিবরাত্রির মেলা থেকেই ওই দুইজন পালিয়ে যায়।দুইজনের পরিবারই খোঁজ শুরু করেছে। ওই কিশোরের পরিবার থানায় অভিযোগও দায়ের করেছে। তবে ওই দুইজনের কারোরই খোঁজ মেলেনি এখনও।

আরও পড়ুনঃ১২০ কোটি টাকা ব্যয়ে ‘নেত্রী: দ্য লিডার’ সিনেমাটি নির্মাণ করবেন অনন্ত জলিল। বাংলাদেশ, ভারত, ইরান এবং তুরস্কের বিভিন্ন শিল্পী অভিনয় করবেন এ সিনেমাতে। এটির কেন্দ্রীয় চরিত্রে থাকছেন জলিলপত্নী ও চিত্রনায়িকা বর্ষা।

‘নেত্রী: দ্য লিডার’ সিনেমায় বডিগার্ড চরিত্রে অভিনয় করবেন অনন্ত জলিল। বর্ষার নিরাপত্তায় কাজ করবেন তিনি। তুরস্কের সঙ্গে যৌথ প্রযোজনায় নির্মিত হবে ‘নেত্রী: দ্য লিডার’। সিনেমাটির মহরতে এমনটাই জানিয়েছিলেন এ অভিনেতা।

এবার নিজের নতুন লুক প্রকাশ করেছেন অনন্ত। সোমবার (১৫ মার্চ) ফেসুবকে তার নতুন লুকের একাধিক ছবি প্রকাশ করেছেন তিনি। প্রকাশিত ছবিতে, স্টাইলিস্ট হেয়ার কাটের সঙ্গে গোফসহ দেখা গেছে অনন্ত জলিলকে। এ পোস্টের কমেন্টস বক্সে মিশ্র প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছেন নেটিজেনরা।

এদিকে মুক্তির অপেক্ষায় আছে অনন্ত জলিলের ‘দিন: দ্য ডে’ সিনেমাটি। ইরানের সঙ্গে যৌথ প্রযোজনায় নির্মিত হয়েছে এটি। সম্প্রতি প্রকাশ হয়েছিল এ সিনেমার মোশন পোস্টার। তাতে বেশ বিরক্ত প্রকাশ করেছেন ভক্তরা। নেট দুনিয়ার বিভিন্ন গ্রুপে তুমুল সমালোচনার জন্ম দিয়েছিল মোশন পোস্টারটি।

অন্যদিকে ১২০ কোটি টাকা ব্যয়ে সিনেমা নির্মাণ করায় অনন্ত জলিলের সমালোচনা করেছেন মুফতী সালমান ফারসি। অনন্ত জলিলের প্রতি অনুরোধ এবং তার দৃষ্টি আকর্ষণ করে তিনি বলেছিলেন, ‘আমার প্রিয় অনন্ত জলিল ভাইয়ের কাছে অনুরোধ-আল্লাহকে ভয় করুন। বাংলাদেশের সিনেমাগুলো বন্ধ হওয়ার পথে। সিনেমা এখন আর মানুষ দেখে না। অনেক নায়ক-নায়িকারা তওবা করে আল্লাহর দিকে ফিরে এসেছেন। আপনার কাছে বিনীত আবদার রাখছি, সিনেমা নির্মাণ করে জাতিকে গুনাহের দিকে ডাক দিয়েন না।’