বিয়ে বাড়িতে সুন্দরী তরুণীর অসাধারন ডান্সের ভিডিও ভাইরাল, (ভিডিও)

0
11

গ্রামের বিয়ে গুলোতে এখন শহরের মতোই গান বাজনা বাজিয়ে বিয়ে গুলো সম্পন্ন হয়, গ্রাম বা শহরের বিয়ে গুলোতে দেখা যায় ছেলেমেয়ে উপায় ডান্স করে। গ্রামের এমন একটি বিয়েতে দেখা যায় একটি সুন্দরী মেয়ে শাড়ি পড়ে অসাধারণ ডান্স করেছে। আরোও পড়ুন..’অনিমেষ ছাড়াও দ্বিতীয় প্রেম আছে ভাবনার’!

নির্মাতা ও অ’ভিনেতা অনিমেষ আইচের স’ঙ্গে অভিনেত্রী আশনা হাবিব ভা’বনার সম্প’র্কটা অনেকটা ‘অপেন সিক্রেট’ টাইপের। যদিও ভাবনা অ’নিমেষের স’ঙ্গে প্রে’মের কথা কখনও লু’কিয়ে রাখেননি। শোবিজ অ’ঙ্গনের পা’শাপাশি তার ভক্তরাও সে খবর জানেন। অনিমেষের স’ঙ্গে প্রেমের বি’ষয়ে ব’রাবরই খোলামেলা হলেও ভাবনা অজানা

রে’খেছিলেন তার দ্বিতীয় প্রে’মের কথা! হ্যাঁ, অনিমেষ ছাড়াও দ্বিতীয় প্রেম আছে ভাবনার! তবে সেটি কোনও সু’দর্শন যু’বকের স’ঙ্গে নয়। তাহলে? সেই র’হস্যটাও ভাবনা নিজেই খোলাসা করেছেন। এ অভিনেত্রী জানান, তিনি আংটি প’রতে খুব প’ছন্দ করেন। তাই অনিমেষ আইচ অনেক আংটি উপহার দিয়েছেন। অনিমেষ ছাড়াও দ্বিতীয় প্রেম সম্প’র্কে ভা’বনা বলেন,

‘আমার দ্বিতীয় প্রেম হচ্ছে সমুদ্র প্রেম। পৃথিবীতে আমার স’বচেয়ে পছন্দের জা’য়গা হচ্ছে কক্সবাজার। সে কারণেই কক্সবাজারে একটা জমি কে’নার ইচ্ছে আছে আমার। দেখা যাক, সেই ইচ্ছে কবে পূরণ হয়।’ ছোটপর্দার জ’নপ্রিয় অভিনেত্রী আশনা হাবিব ভাবনা রুপালি পর্দায় সবশেষ ‘ভ’য়ংকর সুন্দর’ ছবিতে কলকাতার অ’ভিনেতা প’রমব্রত চট্টোপাধ্যায়ের বিপরীতে অভিনয় করে দ’র্শক-ভক্তদের প্রশংসা কু’ড়িয়েছিলেন।

বরিশালে ৬৪ বছরের বৃ’দ্ধ বিয়ে করলেন বৃ’দ্ধাকে, বউকে তুলে নিলেন ঘোড়ার গাড়িতে বরিশালে জাঁ’কজ’মকপূর্ণ অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে বজলু খান (৬৪) ও বকুল বেগম ওরফে ফুলশুনী (৫৮) নামের এক বৃ’দ্ধ নব দম্পতির বিয়ে নিয়ে এলাকায় চাঞ্চ’ল্যের সৃষ্টি হয়েছে। ৩০ হাজার টাকা দেন মোহরে বিয়ে হয় তাদের।

এদিন বর বিয়ে করতে আসেন ঘোড়ার গাড়িতে করে। বিয়ে সম্পূ’র্ণ হওযার পর আবার ঘোড়ার গাড়িতে চরেই কনেকে নিয়ে যান। এ যেন রুপকথার রাজপুত্র আর রাজকন্যার গ’ল্পের মতো। শনিবার (১৩ মার্চ) দুপুরে নগরের দক্ষিণ আলেকান্দায় এ বিয়ে সম্পূ’র্ণ হয়। জানা যায়, বজলু খান বরিশালের উজিরপুর কালিহাতা গ্রামের বাসি’ন্দা। ৩০ বছর আগে তার প্রথম স্ত্রী’কে তা’লা’ক দেন তিনি। ওই ঘরে ২ ছেলে এবং ১টি মে’য়ে আছে।

এরপর দ্বিতীয় বিয়ে করেন নগরের সাগরদী দরগাহ্ বাড়ি এলাকায় ভাড়া বাসায় বসবাস কাঠ মিস্ত্রির কাজ করে জীবিকা নির্বাহ করেন। গেল বছর নগরীর ১ নম্বর সিএন্ডবি পোল এলাকায় ট্রাক চা’পায় দ্বিতীয় স্ত্রী মা’রা যাওয়ার পর নিঃ’স’ঙ্গ হয়ে পরেন তিনি। অন্যদিকে, নগরীর খান সড়ক এলাকার অস্থায়ী বাসিন্দা ফুলশুনীর স্বা’মী মা’রা যায় ১০ বছর আগে। একমাত্র ছেলে ঢাকায় থাকায় সে খোঁজ খবর নেয় না।

জীবিকার তাগিদে নগরের খান সড়ক এলাকায় মহাসড়কের পাশে বসে ডিম বিক্রি করেন তিনি। জানা গেছে, স্থানীয়রা এই দুই জনের একাকীত্ব এবং নিঃস’ঙ্গতা দেখে তাদের দুই জনের বিয়ের প্রাথমিক আলোচনা করেন। উভ’য়ে বিয়েতে সম্মতি দিলে দিনক্ষণ চূড়ান্ত করা হয়। এরপর চাঁ’দা তুলে প্রায় ২০ হাজার টাকা সংগ্রহ করেন স্থানীয় তরুণরা।

কনেকে বিয়ের পোশাক পরিয়ে পার্লা’রে নববধূর সাজে সাজানো হয়। দুপুরে বরসহ ৫ জন বরযাত্রী ঘোড়ার গাড়িতে কনের বাড়ি নগরীর খান সড়ক খালপাড় এলাকায় আসে। সেখানে ৩০ হাজার টাকা দেন মোহরে তাদের বিয়ে হয় এবং স্থানীয় আব্দুল মন্নানের বাসায় বরযাত্রীদের আপ্যায়ন করা হয়।

আপ্যায়ন শেষে ঘোড়ার গাড়িতে কনে নিয়ে যায় বৃ’দ্ধ বর বজলু খান। এই বিয়ের মূ’ল উদ্যোগ গ্রহণকারী মো. মাহাবুবুর রহমান মি’লন এবং মো. ইমান আলী খান সাংবাদিকদের জানান, আর্থিক অ’নট’নের কারণে তাদের মনে

যেন আক্ষে’প না থাকে সে জন্য সোমবার বরের বাসায় বৌ-ভাতেরও আয়োজন করা হয়েছে। বৌভাত শেষে কনেসহ বরকে কনের বাসায় নিয়ে আসা হয়। বিয়েতে খুশী বৃ’দ্ধ নব দম্পতি জীবনের সামনের দিনগুলো সু’খে থাকার জন্য সবার কাছে দোয়া চেয়েছেন।