মে’য়েদের স’তীত্ব প্রমাণ ক’রতে বাজারে এলো ‘ভা’র্জিন পিল’ !

0
64

সভ্যতার শুরু থেকেই না’রী-পু’রুষের বৈষম্য চ’লে আ’সছে। যুগে যুগে না’রী বিভিন্নভাবে নি”র্যা”তি”ত হয়েছে। বি’শেষ করে না’রীর সতীত্ব প্রমাণে পু’রুষ ছাড় দিতে নারা’জ।

এমনকি এই সতীত্ব প্রমাণে সীতাকে দিতে হয়েছিলো আ’গু’নে আ”ত্ম”হু”তি।তবে, এই একুশ শতকে এসে সেই কু’মা’রীত্বের প্রমাণই এবার প্যাকেটব’ন্দি। নাম তার ‘আ’ই ভা’র্জি’ন পি’ল।’ এক ক্লি’কেই মি’লছে অ্যা’মাজ’নের

ওয়েবসাইটে।

ই’ন্ডিয়ান পত্রিকায় এক প্র’তিবেদনে জা’না যায়, স’ম্প্র’তি এক ধ’রনের পি’ল পাওয়া যা’চ্ছে অ্যা’মাজ’ন অনলাই’ন বাজারে। সেখানে বলা হচ্ছে কোনও পা’র্শ্বপ্র’তিক্রিয়া নেই এই ওষুধে। প্রয়োজ’ন পড়ে না কোনও কা’টাছেঁড়ার।

অ’জ্ঞা’ন করারও প্রয়োজ’ন নেই। স্রেফ এক পি’লেই শ’রীরে জমে যাবে প’রিমাণ মতো থকথকে ‘নক’ল’ র”ক্ত। প্রথম স”ঙ্গ”মে”র প’রই যা সতীচ্ছেদ ভে”দ করে বেরিয়ে আস’বে ‘মি’থ্যা’ কু’মা’রীত্বের ‘প্রয়োজ’নীয়’ প্রমাণস্বরূপ!

আবার তাতে চলছে অফারও! অ্যা’মাজ’নের এই প’ণ্য বিক্রির খবর জানতে পেরেই প্র’তিবাদ জা’নান বিভিন্ন শ্রেণি পেশার বিশিষ্টজ’ন।

এ বি’ষয়ে ভারতীয় ক’থা সাহিত্যিক তি’লোত্তমা মজুমদার জা’নান, না’রীদের ছোট ক’রতে স’মাজে’র চা’পিয়ে দেওয়া, লালন করা নানা খে’লার প্রস’ঙ্গ তো বাদই দিলাম, এ তো রীতিমতো মি’থ্যা’চা’র! প্র’তা’র’ণা!

অ’বি’শ্বা’স ও মি’থ্যা’চা’র দিয়ে স’স্প’র্ক শুরুর হদিশই তো দিচ্ছে এই পি’ল! কু’মা’রিত্বের প্রয়োজ’ন আ’ছে কি না তা নিয়ে বলার পাশাপাশি এই প্র’তা’র’ণা’র দিকটিই বা উ’ড়িয়ে দিই কী করে!

মেয়েটি বি’শ্বা’স করছে, কু’মা’রী না হলে ভা’লোবাসা কমবে! ছেলেটি ভাবছে, কু’মা’রী হয়ে ধ’রা দেওয়াই ভা’লোবাসার প্রা’থমিক শর্ত!

তি’লোত্তমা’র ক’থায়, এই দুই ধা’রণার ও’প’র নির্ভর করেই ওষুধ প্র’স্তুতকারী সংস্থাটি যদি তাদের পি’ল বাজারে আনে, আর তার ব্যবহারও হু হু করে বাড়ে, তা হলে এই স’মাজকে যে তার আ’ন্দোলনকে ফের কেঁ’চে গণ্ডুষ ক’রতে হবে তা বেশ বোঝা যায়।

দু’জ’ন মা’নুষের একজ’ন অন্যের আস্থা অর্জ’ন করছে এক অন্যায়, আদিম ও অ’প্রয়োজ’নীয় প্রথা দিয়ে, আর অন্যজ’ন সেই ব’র্বর প্রথা দিয়েই নিক্তিতে মেপে মেয়েটির ‘খুঁ’তহীন’ শ’রীরকে গ্রহণ করছে- এই পি’ল তো সেই

আচ’রণকেই মা’ন্যতা দিচ্ছে!