করো’নায় মৃ’ত্যুর সঙ্গে সূ’র্যের আলোর সম্পর্ক পেলেন এডিনবার্গ ইউনিভার্সিটির গবেষকরা

0
101

করো’নাভাই’রাসে আ’ক্রান্ত হয়ে মা’রা যাওয়ার হার কম হওয়ার পেছনে সূ’র্যের আ’লোর সম্পর্ক রয়েছে বলে দাবি করেছেন একদল গবেষক। ওই গবেষকদের দাবি, যেখানে সূ’র্যের আলোর অতি বেগু’নি রশ্মি বেশি পড়ে, সেখানে করো’নায় আ’ক্রান্ত হয়ে মা’রা যাওয়ার হার কম।

জানা গেছে, যুক্ত’রা’জ্যের এডি’নবার্গ ইউ’ভার্সি’টির একদল গবেষক এ ব্যা’পারে গবে’ষণা করেছেন। তারা গবে’ষণায় দেখেছেন, যে’সব অঞ্চলে সূর্যের অতি’বেগুনি রশ্মি ৯৫ শতাংশ পর্য’ন্ত পৌঁছায়, সেসব এলাকায় মৃ’ত্যু’হার কম। আর যেখানে অতি’বে’গুনি রশ্মি কম পৌঁ’ছায় সেখানে মৃ’ত্যু’হার বেশি।

এডিন’বার্গ ইউ’নিভা’র্সিটির ওই গবে’ষকরা বলেছেন, ভিটা’মিন ডি নয়, সূ’র্যের অতি’বেগু’নি রশ্মির কারণেই বিভিন্ন অঞ্চলে মৃ’ত্যু’হার কম। এই গবেষণা প্রতিবেদনটি প্রকা’শিত হয়েছে ব্রিটিশ জা’র্নাল অব ডার্মা’টোল’জিতে।

জানা গেছে, এই গবে’ষক দল ২০২০ সালের জানু’য়ারি থেকে এ’প্রিল পর্যন্ত প্রায় আ’ড়াই হাজার স্থানের কো’থায় কতটা অতি’বে’গুনি রশ্মি থাকে সেটি খতিয়ে দেখেছেন। আর সেই সঙ্গে ওই সব এলাকায় করো’নার প্রকোপ কতটা, সেই পরিসং’খ্যানও বিশ্লেষণ করেছেন।

গবে’ষণা থেকেই তাদের কাছে স্প’ষ্ট হয়েছে, যেসব অ’ঞ্চলে সর্বাধিক ৯৫ শতাংশ পর্যন্ত অতি’বেগু’নি রশ্মি পৌঁছায়, সেখানে মৃ’ত্যু’হার তুল’নামূল’কভাবে অনেক কম।

গবে’ষকরা এও দেখেছেন, যেসব অ’ঞ্চলে অতিবে’গু’নি রশ্মি তত’টা প্রকট নয়, সেখানেই ক’রো’নায় মৃ’ত্যুর হার বেশি। ইংল্যান্ডের পাশা’পাশি ইতা’লিতেও একই র’কম পরীক্ষা চা’লিয়ে একই ধর’নের ফল পেয়েছেন তারা।