রাতভর করার পর তৃপ্তি মেটেনি সকালে না দেওয়ায় যুবকের কাণ্ড

0
60

সারা রাতভর অ’বৈ’ধ মে’লামেশার পর প’র’কীয়া প্রে’মিক দুই স্ত’ন ও গ’লা কে’টে মে’রে ফেলার উদ্দেশ্যে রাস্তার পাশে ফে’লে দিয়ে গেছে শিল্পী আক্তার (৩২) নামে এক সৌদী প্রবাসীর স্ত্রী’কে। নারায়ণগঞ্জে’র

আড়াইহাজার উপজে’লার ফতেহপুর ইউনিয়নের দক্ষিণপাড়া এলাকা থেকে পু’লিশ যুবতীকে উ’দ্ধার করেছে ।

আরও পড়ুন : হিন্দু ধ’র্মে মানব দে’হের প্রত্যেক অংশের এক নিজস্ব পরিচয় আছে। সমুদ্রশাস্ত্র অনুযায়ী মানুষের দে’হের প্রত্যেকটি অ’ঙ্গের নিজে’র নিজে’র কিছু গু’রুত্ব রয়েছে।

এটি স’স্পর্কেই আজকের আলোচনা। বর্তমান সময়ে প্রায় প্রতিদিনই জিনিসের দান বেড়েই চলেছে। এই অব’স্থায় সাধারণ মানুষের জীবন যাপন করা খুব ক’ষ্টকর হয়ে উঠেছে। গরীব মানুষেরা কীভাবে দুবেলা দুমুঠো খেয়ে বেঁ’চে থাকবে সেটাই ভেবে পাচ্ছেনা।

ধনী হতে কে না চায়? সকলেই চায় বেশি টাকা রোজকার ক’রতে। জ্যোতিষশাস্ত্র মতে মানব শ’রীরের বিভিন্ন অ’ঙ্গের কিছু চিহ্নকে অত্যন্ত শুভ বলে মানা হয়।

এই ধ’রনের চিহ্ন থাকলে তা ভাগ্য পরিবর্তনের সংকেত বলে মনে করা হয়। ১) হাতের তালুর মাঝখানে যদি টমর, রথ, চক্র, তীর বা পতাকা চি’হ্নিত থাকে তবে তারা খুব ভাগ্যবান হয়। এরা ব্যবসায়িক দিক থেকে শুরু করে চাকরি, সব কিছুতেই সফল হয়।

তাদের বিবাহিত জীবন সব সময় প্রেমময় হয়। তারা যে কাজই শুরু করুক না কেন তাতেই তারা সাফল্য লাভ করে। পরিবারের সবার কাছে এরা ভীষণ প্রিয় হয়।

২) মানুষের শ’রীরে তিল থাকা খুব সাধারণ একটা ব্যাপার। যদি এই তিল আপনার হাতের তালুতে উপস্থিত থাকে তাহলে এটি আপনার জন্য খুব উপকারী

তালুর মাঝখানে তিল থাকা ব্যাক্তিরা খুব ধনী হয়। তারা সমাজে সম্মানিত এবং প্রতিষ্ঠিত হয়। তাদের জীবনে অনেক সংগ্রাম ক’রতে হত আর তারা সফল হয়। তাদের সঙ্গীর প্রতি তাদের আ’লাদাই স্নেহ থাকে।

৩) যাদের পায়ে পদ্ম চিহ্ন বা চক্র চিহ্ন থাকে তাদের ধনসম্পদের কোন ক্ষ’তি হয়না। এই মানুষেরা প্রচুর ধন সম্পদ ও জমি জায়গার সুখ ভোগ করে। তারা শি’শুদের খুব ভালোবাসে, এরা অন্য মানুষের উপর নিজে’র

আদেশ চালানো পছন্দ করে। এরা খুব ভালো মনের মানুষ হয় এবং খুব অল্প সময়ে কারোর হৃদয় জয় ক’রতে পারে।

৪) যাদের পায়ের তলায় তিল থাকে তাদের সেরা শাসক বলে মনে করা হয়। এই মানুষরা জীবনে সব ধ’রনের সুখ পায়। এরা জীবনে স্বাধীন ভাবে চলতে ভালোবাসে।

তারা নিজেদের লক্ষ্যে পৌঁছনোর জন্য অনেক ক’ঠোর পরিশ্রম ক’রতে ভালোবাসে। টাকার ক্ষেত্রে এরা খুব ভাগ্যবান হয়। এরা নিজেদের পিতামহ এবং মাতামহের কাছ থেকে অনেক সম্পদ আশীর্বাদ রূপে পেয়ে থাকে।