একেক সময় একেক তথ্য দিচ্ছেন ইকবাল

0
143

কুমিল্লার নানুয়াদিঘির পাড়ের পূজামণ্ডপে পবিত্র কোরআন শরিফ রাখার কথা স্বীকার করেছেন ইকবাল হোসেন। শুক্রবার (২২ অক্টোবর) বিকালে কুমিল্লা পু’লিশ লাইন্সে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদের সময় এ কথা স্বীকার করেন বলে জানিয়েছেন নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর একাধিক কর্মক’র্তা। তবে কোরআন অবমাননার বিষয়টি স্বীকার করলেও তাকে দিয়ে কে কাজটি করিয়েছেন, তা বলছেন না ইকবাল। একেক সময় একেক তথ্য দিচ্ছেন।

পু’লিশ জানিয়েছে, ইকবাল কুমিল্লা শহরেরই বাসিন্দা, তবে ‘ভবঘুরে ও মা’দকাসক্ত’। পু’লিশ সূত্র বলছে, জিজ্ঞাসাবাদে ইকবাল একেক সময় একেক তথ্য দিয়েছেন। কোনো প্রশ্নেরই সদুত্তর দেননি। ইকবালকে শুক্রবার দুপুরে কক্সবাজার থেকে কুমিল্লা পু’লিশ লাইনসে আনা হয়। সেখানেই তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে পূজামণ্ডপে পবিত্র কোরআন রাখা এবং প্রতিমা থেকে গদা সরানোর বিষয়টি স্বীকার করেন ইকবাল।

কুমিল্লা জে’লা পু’লিশ সুপার ফারুক আহমেদ গণমাধ্যমকে বলেন, ইকবাল কিছু বিষয় স্বীকার করেছেন। তাকে আরও জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে। পু’লিশ সূত্র জানায়, ইকবালের সঙ্গে স্থানীয় জনপ্রতিনিধিসহ যাদের ঘনিষ্ঠতা থাকার তথ্য পাওয়া গেছে, তাদের নজরদারির মধ্যে রাখা হয়েছে।

এদিকে এ ঘটনায় ঘটনায় প্রধান অ’ভিযু’ক্ত ইকবালসহ চারজনকে সাত দিন করে রি’মান্ডে পাঠিয়েছে আ’দালত। কুমিল্লার জ্যেষ্ঠ বিচারিক হাকিম আ’দালতের বিচারক বেগম মিথিলা জাহান নিপা দুপুর দেড়টার দিকে এ আদেশ দেন।কুমিল্লার ঘটনায় এ পর্যন্ত আটটি মা’মলা হয়েছে। এসব মা’মলায় কুমিল্লা সিটি করপোরেশনে জামায়াতের তিন কাউন্সিলর, বিএনপির কয়েকজন কর্মীসহ ৯১ জনের নাম উল্লেখসহ অ’জ্ঞাতপরিচয় ৭০০ জনকে আ’সামি করা হয়েছে।

কুমিল্লার নানুয়াদিঘির পাড়ের পূজামণ্ডপে পবিত্র কোরআন শরিফ রাখার কথা স্বীকার করেছেন ইকবাল হোসেন। শুক্রবার (২২ অক্টোবর) বিকালে কুমিল্লা পু’লিশ লাইন্সে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদের সময় এ কথা স্বীকার করেন বলে জানিয়েছেন নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর একাধিক কর্মক’র্তা। তবে কোরআন অবমাননার বিষয়টি স্বীকার করলেও তাকে দিয়ে কে কাজটি করিয়েছেন, তা বলছেন না ইকবাল। একেক সময় একেক তথ্য দিচ্ছেন।

পু’লিশ জানিয়েছে, ইকবাল কুমিল্লা শহরেরই বাসিন্দা, তবে ‘ভবঘুরে ও মা’দকাসক্ত’। পু’লিশ সূত্র বলছে, জিজ্ঞাসাবাদে ইকবাল একেক সময় একেক তথ্য দিয়েছেন। কোনো প্রশ্নেরই সদুত্তর দেননি। ইকবালকে শুক্রবার দুপুরে কক্সবাজার থেকে কুমিল্লা পু’লিশ লাইনসে আনা হয়। সেখানেই তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে পূজামণ্ডপে পবিত্র কোরআন রাখা এবং প্রতিমা থেকে গদা সরানোর বিষয়টি স্বীকার করেন ইকবাল।

কুমিল্লা জে’লা পু’লিশ সুপার ফারুক আহমেদ গণমাধ্যমকে বলেন, ইকবাল কিছু বিষয় স্বীকার করেছেন। তাকে আরও জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে। পু’লিশ সূত্র জানায়, ইকবালের সঙ্গে স্থানীয় জনপ্রতিনিধিসহ যাদের ঘনিষ্ঠতা থাকার তথ্য পাওয়া গেছে, তাদের নজরদারির মধ্যে রাখা হয়েছে।

এদিকে এ ঘটনায় ঘটনায় প্রধান অ’ভিযু’ক্ত ইকবালসহ চারজনকে সাত দিন করে রি’মান্ডে পাঠিয়েছে আ’দালত। কুমিল্লার জ্যেষ্ঠ বিচারিক হাকিম আ’দালতের বিচারক বেগম মিথিলা জাহান নিপা দুপুর দেড়টার দিকে এ আদেশ দেন।কুমিল্লার ঘটনায় এ পর্যন্ত আটটি মা’মলা হয়েছে। এসব মা’মলায় কুমিল্লা সিটি করপোরেশনে জামায়াতের তিন কাউন্সিলর, বিএনপির কয়েকজন কর্মীসহ ৯১ জনের নাম উল্লেখসহ অ’জ্ঞাতপরিচয় ৭০০ জনকে আ’সামি করা হয়েছে।