August 7, 2022

পদ্মা সেতু পার হয়ে বাড়ি যাওয়ার তর সইছে না হাবিবুল বাশারের

বাংলাদেশের ক্রিকেটের উর্বর ভূমি খুলনা বিভাগ। হাবিবুল বাশার সুমন, মাশরাফি বিন মুর্তজা, সাকিব আল হাসান, মুস্তাফিজুর রহমানরা উঠে এসেছেন এই খুলনা থেকে। প্রমত্তা পদ্মা নদী পাড়ি দিয়েই রাজধানী ঢাকায় আসতে হয় তাদের।
হাবিবুল বাশার সুমন

এই নদী পার হয়ে রাজধানীর বুকে এসে ক্রিকেট খেলে দেশের তারকা হয়েছেন তারা সবাই। হাবিবুল বাশার সুমনের গ্রামের বাড়ি কুষ্টিয়া জেলায়। ঢাকা থেকে জন্মস্থানে ফিরতে যাত্রা পথে অনেক দুর্ভোগ, ফেরীর জন্য ক্লান্তিকর অপেক্ষায় থাকতে হয় তাকে। শেকড়ে ফেরাটা তাই এক তিক্তকর অভিজ্ঞতাই তার জন্য।

তবে সেসব ঝক্কির দিন ফুরিয়ে আসছে হাবিবুলের জন্য। কারণ বাংলাদেশের স্বপ্ন পদ্মা সেতু এখন মাথা তুলে দাঁড়িয়েছে। আগামী ২৫ জুন ৬.১৫ কিলোমিটার দীর্ঘ পদ্মা সেতুর উদ্বোধন হবে। বিশাল সম্ভাবনার এই পদ্মা সেতু হাবিবুলের মতো ওই অঞ্চলের গণ মানুষের জন্য বিশাল আর্শীবাদ।

জাতীয় দলের সহকারী এই নির্বাচক পদ্মা সেতু নিয়ে রোমাঞ্চিত। এই সেতু দিয়ে গাড়ি চালিয়ে বাড়ি ফেরার জন্য তর সইছে না তার। পদ্মা সেতু নিয়ে নিজের উচ্ছ্বাস প্রকাশ করে সাংবাদিকদের বুধবার তিনি বলেন, ‘আমার তো ইচ্ছে ছিল প্রথম দিনই ড্রাইভ করার। আমরা যারা ওই অঞ্চলের বাসিন্দা তাদের জন্য অনেক বড় পাওয়া। অবশ্যই অন্তরের অন্তঃস্থল থেকে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানাতে চাই।’

কুষ্টিয়া যাওয়ার পথে সব ভোগান্তি কমিয়ে দেবে পদ্মা সেতু, ‘আমরা যারা সব সময় দেশের বাড়িতে যাই, ভ্রমণ করি তাদের জন্য বিশাল পাওয়া। আগে ৮-৯-১০ ঘণ্টা সময় লাগতো। দেখা যায় ফেরির জন্য বসে আছি। কখন পার হবো তা নিয়ে থাকে দুশ্চিন্তা। এখন অন্তত ৫-৬ ঘণ্টা কম লাগবে।’

নিজের গাড়ি চালিয়ে পদ্মা সেতু পার হতে মুখিয়ে আছেন বাংলাদেশের সাবেক এ অধিনায়ক। মিরপুর স্টেডিয়ামে হাবিবুল বলেন, ‘খুবই উদ্দীপ্ত কবে থেকে (যানবাহন) চলাচল শুরু হবে। আশা করি এখন না পারলেও শিগগিরই যাব। এমনি দেখতে গিয়েছি পদ্মা সেতু। কিন্তু পদ্মা সেতুতে গাড়ি চালিয়ে যাব এজন্য আমি ভীষণ রোমাঞ্চিত।’

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.